শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন

শূন্য আসনের ভোটারা এখন জামাই আদরে

তোফায়েল হোসেন জাকির
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০২২

তোফায়েল হোসেন জাকির: গাইবান্ধা-৫ আসন। ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া এমপির মৃত্যুতে এ আসনটি শূন্য হয়। তফসিল অনুযায়ী আগামী ১২ অক্টোবর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আর এই নির্বাচনকে ঘিরে সরগরম হয়ে ওঠেছে নির্বাচনী এলাকা। ভোটের মাঠে কোমর বেঁধে নেমেছেন প্রার্থীরা। ছুটছেন এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তরে। এলাকার উন্নয়নে নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন তারা। ভোটারদের সঙ্গে চলছে কোলাকুলি ও মোলাকাত। এভাবে নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই ভোটারদের কদর  বাড়ছে। সবমিলে সাধারণ ভোটার এখন জামাই আদরে রয়েছে।

জানা যায়, গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনের উপনির্বাচনে ৫ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। তারা হলেন, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মাহামুদ হাসান রিপন, জাতীয় পার্টি থেকে গোলাম শহীদ রঞ্জু, বিকল্প ধারার জাহাঙ্গীর হোসেন, স্বতন্ত্র হয়ে সৈয়দ মাহবুবুর রহমান ও নাহিদুজ্জামান নিশাত।

এসব প্রার্থী ভোটপ্রার্থনায় চষে বেড়াচ্ছেন প্রত্যান্ত অঞ্চলে। প্রচার-প্রচারণায় সরব হয়ে ওঠেছে তারা। বিরামহীনভাবে চালিয়ে যাচ্ছেন গণসংযোগ। কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ভোরের সূর্য ওঠার সাথেই বেড়িয়ে পড়ছেন ভোট প্রার্থনায়। চরাঞ্চলসহ বিভিন্ন গ্রাম-গঞ্জ ও হাট-বাজারে গিয়ে নিজেদের অবস্থান জাহির করতে ব্যস্ত সময় পার করছে তারা। দিন শেষে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন প্রার্থীরা। ভোটের খোঁজে নৌযোগে চরাঞ্চল গিয়ে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নির্বাচনী ইস্তেহার ঘোষণা করছেন। একই সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক একাউন্ট, পেজ ও গ্রুপ খুলে নিজেকে সৎ নির্ভীক হিসেবে জাহির করাসহ নানা ধরণে ভিডিও-স্ট্যাটাস পোষ্ট করতে দেখা গেছে।এদিকে, সাধারণ ভোটাররা জানিয়েছে, গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনে মাহামুদ হাসান রিপন ও গোলাম শহীদ রঞ্জুর মধ্যে মূল লড়াই হবে। তবে সবচেয়ে জনপ্রিয়তায় রয়েছে রিপন। এর কারণ হিসেবে তারা বলেন, এই আসনে তার অনেক অবদান রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এলাকার উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এ কারণে ভোটের মাঠে এগিয়ে রয়েছে নৌকা প্রতীকের রিপন।

গাইবান্ধা জেলা নির্বাচন কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলা নিয়ে এ সংসদীয় আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৩৯ হাজার ৭৪৩ জন। এর মধ্যে ফুলছড়ির ৭ টি ইউনিয়নে এক লাখ ১৪ হাজার ৬৭৬ জন এবং সাঘাটার ১০ টি ইউনিয়নে ২ লাখ ২৫ হাজার ৭০ জন। ফুছড়িতে ৫৭টি এবং সাঘাটায় ৮৮টি মোট ১৫৪টি  ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হবে।উল্লেখ্য, গত ২৩ জুলাই সাবেক ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার মৃত্যুতে ৩৩,গাইবান্ধা ৫ আসনটি শূন্য হয়। যার ফলে সংসদীয় এই আসনে আগামী ১২ অক্টোবর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | জাগো২৪.নেট

কারিগরি সহায়তায় : শাহরিয়ার হোসাইন