রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১২:২৯ অপরাহ্ন

চবিতে সুযোগ পেয়েও ভর্তি অনিশ্চিত সজিবের

স্টাফ করেসপন্ডেন্টে, জাগো২৪.নেট
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২

মেধাবী শিক্ষার্থী সজিব মোদক। দরিদ্রতা ডিঙ্গিয়ে উচ্চ শিক্ষার স্বপ্ন দেখেন। ভর্তির সুযোগও পেয়েছেন চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু সেই স্বপ্ন ভেস্তে যাওয়ার শঙ্কা। চরম অর্থাভাবে ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে দাঁড়িয়ে এই সজিবের।

গাইবান্ধা শহরের ব্রীজরোড মিস্ত্রীপাড়ার বাসিন্দা ও মধুবিড়ি ফ্যাক্টরির নৈশপ্রহরী সুনীল কুমার মোদকের ছেলে সজিব মোদক।

স্থানীয়রা জানায়, সজিব অত্যান্ত মেধাবী ছাত্র। এরই মধ্যে চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে  ভর্তি পরীক্ষায়  উত্তীর্ণ হয়েছেন। ডি ইউনিটে ৩৩ তম স্থান অর্জন করেছে সে।

এরআগে গাইবান্ধা ব্রীজরোড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পিএসসি পরীক্ষায় বৃত্তি, গাইবান্ধা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি, এসএসসি ও সরকারি কলেজ থেকে মানবিক বিভাগ থেকে এইচএসসিতে গোল্ডেন এ প্লাস অর্জন করেছে।

সজীবের মা ডলি রানী মোদক জাগো২৪.নেট-কে বলেন, আমরা গরীব মানুষ। আমার স্বামী গাইবান্ধার দাড়িয়াপুরের মধু বিড়ি ফ্যাক্টরির একজন নৈশপ্রহরী। সামান্য বেতনের টাকায় সংসার চলে। আমি বসে থাকার চেয়ে বাসায় হোমিও দোকানের ওষুধের প্যাকেট বানাই। এতে খরচ বাদে মাত্র ৫০ টাকা লাভ হয়। সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়। সেখানে সন্তানের লেখাপড়া চালানোর খরচ বহন করা দুঃসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সজিবের বাবা সুনীল কুমার মোদক জাগো২৪.নেট-কে বলেন, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে  ভর্তি হওয়ার পেছনে বই, পোশাক, যাতায়াতসহ প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকার দরকার। এমতাবস্থায় এতো টাকা যোগার করা মোটেও সম্ভব নয়। এখন ছেলেটার ভবিষ্যৎ চিন্তায় নির্ঘুম রাত কাটছে।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | জাগো২৪.নেট

কারিগরি সহায়তায় : শাহরিয়ার হোসাইন