রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১২:১৯ অপরাহ্ন

পটলই পাল্টে দিচ্ছে কৃষকের জীবন

তোফায়েল হোসেন জাকির, জাগো২৪.নেট
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৮ মে, ২০২২

তোফায়েল হোসেন জাকিরঃ কৃষক বাদশা, দয়াল ও জাফরুল। তারাসহ আরও অনেকে ক্ষেত থেকে ছিড়েছেন পটল। বিক্রির জন্য তুলেছেন বাজারে। দাম পাচ্ছেন ভালো। ফলনও হয়েছে বাম্পার। এ নিয়ে হাসি ফুটেছে তাদের। যেন পটলই পাল্টে দিচ্ছে এই কৃষকদের জীবন।

বুধবার (১৮ মে) দুপুরে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ পৌর শহরের এনসিডিপি হোল সেল কাঁচা বাজারে দেখা যায় পটল বেচা-কেনার ব্যস্ততা। কৃষকদের স্বপ্নের প্রতি মণ পটল ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা দরে পাইকারী বিক্রি হচ্ছে। আর এসব পটল যাচ্ছে রাজধানী ঢাকায়।

জানা যায়, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার অধিকাংশ মানুষ কৃষিতে আত্ননির্ভশীল। এখানকার মাটির স্বাস্থ্য সুরক্ষা থাকায় ধান-শাক-সবজিসহ বিভিন্ন ধরণের ফসল ফলে। এরই ধারাবাহিকতায় এ বছরে অন্যান্য শাক-সবজির পাশাপাশি প্রায় ৭৫ হেক্টর জমিতে পটল আবাদ করা হয়েছে। এসব কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছে উপজেলা কৃষি বিভাগ। উঁচু ও পতিত জমিতে পটল আবাদে অধিক ফলন হয়েছে। ইতোমধ্যে ক্ষেতের পটল ছিড়ে বাজারে বিক্রি শুরু করেছে কৃষকরা। এতে ভালো দাম পেয়ে খুশি হচ্ছেন তারা। ফলে অধিক লাভে বদলে যেতে বসেছে কৃষক পরিবারের জীবন-জীবিকা। তাই সংসারের অভাব থেকে ঘুড়ে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে তারা।

কৃষকরা জানায়, এইসব পটল ক্ষেত থেকে কয়েকদিন পর পর একাধিকবার পটল উঠানো হবে। বর্তমান ফলন অনুয়ায়ী প্রতি হেক্টরে প্রায় ১৫ টন পর্যন্ত পটল উৎপাদন হতে পারে বলে ধারণা করছে কৃষি বিভাগ।

কৃষক দয়াল সাধু জাগো২৪.নেট-কে বলেন, উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় ৫০ শতক জমিতে পটল আবাদ করা হয়। সম্প্রতি ক্ষেতের পটল বিক্রি শুরু করা হয়েছে। বর্তমান বাজারে দাম ভালো থাকায় বেশ লাভবান হচ্ছি।

খাইরুল ইসলাম নামের এক ব্যাপারী জানান, সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা মণ দামে পটল কেনা হচ্ছে। আমদানী ভালো হয়েছে। ক্রয়কৃত পটলগুলো ট্রাকলোডে ঢাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ মুন্না জাগো২৪.নেট-কে জানান, পটল চাষিদের লাভবান করতে সার্বিক সহযোগিতা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে সব ধরণের শস্যের উৎপাদন বাড়াতে মাঠপর্যায়ে সর্বাত্নক চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

 

 

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | জাগো২৪.নেট

কারিগরি সহায়তায় : শাহরিয়ার হোসাইন