শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:৩০ পূর্বাহ্ন

পাবনায় কুকুরের কামড়ে শিশুসহ আহত ১০

মাসুদ রানা, করেসপন্ডেন্ট, জাগো২৪.নেট, পাবনা
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২২
পাবনার চাটমোহরে পাগলা কুকুরের কামড়ে শিশুসহ অন্তত দশ ব্যক্তি আহত হয়েছেন। বুধবার (৭ ডিসেম্বর) পৌর সদরের মির্জা মার্কেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে সরকারি হাসপাতালে ভ্যাক্সিন না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আহতরা।
জানা গেছে, চাটমোহর পৌর সদরে পাগলা কুকুরের উপদ্রব আশঙ্কাজনক ভাবে বেড়ে গেছে। বুধবার পৌর সদরের মির্জা মার্কেট এলাকায় সুখদেব কুন্ডু (৭০) নামে এক ব্যক্তি পাগলা কুকুরের কামড়ে আহত হন। গত দু’দিনে পৌর এলাকায় কুকুরের কামড়ে শিশুসহ অন্তত দশজন আহত হয়েছেন।
আহতরা হলেন পৌর সদরের দোলং মহল্লার শরীফ হোসেনের মেয়ে সম্পা (১১), মির্জাপুরের শিল্পী (৫০), পৌর সদরের বালুচর মহল্লার ইব্রাহিম খলিল (৫২), নাপিত পাড়ার শিখা রাণী (৬০) ও শঙ্কর দত্ত (৫০) ও বোঁথর গ্রামের কানাই চূর্ণকার। এছাড়া প্রায়শই কেউ না কেউ আহত হচ্ছেন কুকুরের কামড়ে। এতে স্কুল, কলেজগামী ছেলে-মেয়েসহ পথিকদের ভয়ে ভয়ে পথ চলতে হচ্ছে।
এদিকে স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে ভ্যাক্সিন সরবরাহ না থাকায় বিপাকে পরছেন এলাকার সাধারণ মানুষ। কুকুরের ভয়ে বুধবার সকালে পৌর এলাকায় অনেকের হাতে লাঠি নিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রতিকার চেয়ে পোস্ট দিয়েছেন অনেকেই।
চাটমোহর পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন সাখো বলেন, কুকুর নিধন নিষেধ। তবে কিছু দিন পূর্বে বিষক্রিয়া নষ্টের জন্য কুকুরকে ভ্যাক্সিন দেওয়া হয়েছে। মালিকানাধীন কুকুরগুলোর মালিকরা এবং পথিক সচেতন হলে কিছুটা হলেও এ উপদ্রব থেকে রক্ষা পাবে।
এ বিষয়ে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: ওমর ফারুক বুলবুল বলেন, আমাদের সরবরাহকৃত ভ্যাক্সিন শেষ হয়ে যাওয়ায় আহতদেরকে ভ্যাক্সিন দিতে পারছিনা। ইতো পূর্বে সমাজ সেবা অধিদপ্তর কিছু ভ্যাক্সিন দিলেও তা শেষ হয়ে যাওয়ায় তারাও আর দিতে পারছেন না। তবে নতুন বরাদ্দ পেলে তখন এই সমস্যার সমাধান হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | জাগো২৪.নেট

কারিগরি সহায়তায় : শাহরিয়ার হোসাইন